Categories
স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা

লেয়ার খামারে বাচ্চা পালনে যেসব কাজ করা জরুরী


মুরগি

লেয়ার খামারে বাচ্চা পালনে যেসব কাজ করা জরুরী সেগুলো খামারিদের জেনে রাখতে হবে। লেয়ার মুরগির খামারগুলো দেশের ডিমের চাহিদা পূরণে বিশেষ ভূমিকা পালন করে আসছে। লাভজনক হওয়ার কারণে বর্তমানে অনেকেই লেয়ার মুরগি পালনে ঝুঁকছেন। লেয়ারের খামারে বাচ্চা পালনে বিশেষ সতর্ক থাকতে হয়। আসুন আজ জানাব লেয়ার খামারে বাচ্চা পালনে যেসব কাজ করা জরুরী সেই সম্পর্কে-

লেয়ার খামারে বাচ্চা পালনে যেসব কাজ করা জরুরীঃ 


বাতাস চলাচলঃ


  • বাচ্চার যাতে ঠান্ডা না লাগে সে জন্য সীমিতভাবে বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা রাখতে হয়
  • ছোট ঘরের উপরিভাগে দূষিত বাতাস বের হওয়ার জন্য ফাঁকা জায়গা রাখা হয়
  • ঘরের দূষিত বাতাস বের হওয়া এবং বিশুদ্ধ বাতাস প্রবেশের জন্য বাতাস চলাচলের প্রয়োজন

লিটার ব্যবস্থাপনাঃ


  • ভিজা লিটার তাৎক্ষণিকভাবে সরিয়ে নেয়া।
  • শুকনো মেঝেতে ১ থেকে ২ ইঞ্চি পুরু করে লিটার সামগ্রী বিছানোর পর ব্রুডার গার্ড, হোভার এবং হিটিং সরঞ্জাম বসানোর ব্যবস্থা করতে হবে।
  • লিটার জমাট বাঁধতে না দেয়া।
  • খাঁচায় বাচ্চা ব্রুডিং করলে মেঝেতে লিটার বসানোর প্রয়োজন নেই। সরাসরি ব্রুডার খাঁচা স্থাপন করতে হয়।

ঘরের আর্দ্রতাঃ


মেঝেতে যে লিটার বিছানো হয় তার আর্দ্রতা শতকরা ২০ ভাগ থাকা উচিত। লিটারের আর্দ্রতা কমে গেলে মুরগির দেহের জলীয় অংশ শুষে নেয়, ফলে ডিহাইড্রেশন হয়। লিটারের আর্দ্রতা বেশি হলে ঘরে এ্যামোনিয়ার উৎপাদন বৃদ্ধি পায় এবং মুরগির শ্বাস-কষ্টজনিত সমস্যা হয়।

খাদ্য ব্যবস্থাপনাঃ


  • প্রথম দুই দিন বিছানো কাগজের উপর গম বা ভূট্টা ভাঙ্গা বা চালের ক্ষুদ;
  • তৃতীয় দিন হতে ছয় সপ্তাহ পর্যন্ত সুষম বা সম্পূর্ণ ষ্টার্টার খাদ্য;
  • তৃতীয় দিন পাত্রে ষ্টার্টার রেশন দেয়া শুরু;
  • চতুর্থ দিন কাগজের উপর খাদ্য দেয়া বন্ধ করতে হবে।

পানি ব্যবস্থাপনাঃ


  • প্রাথমিভাবে ৪ থেকে ৫ ঘন্টা গ্লুকোজ বা চিনি মিশ্রিত পানি প্রদান।
  • পরবর্তিতে ৩ দিন ভিটামিন মিশ্রিত পানি প্রদান।
  • ব্রুডারের তাপে পানি গরম হতে দেওয়া, কখনও ঠান্ডা পানি প্রদান করা উচিত নয়।

আরও পড়ুনঃ 


পোল্ট্রি প্রতিবেদন / আধুনিক কৃষি খামার



Source link