Categories
Mobile Mobile price BD

বাজার কাঁপাচ্ছে এই 5 সেরা Vivo Phones, সেলফি ও রিয়ার ক্যামেরা ফাটাফাটি


আপনি যদি স্টাইলিশ ডিজাইন এবং দুর্দান্ত ক্যামেরার একটি নতুন স্মার্টফোন কিনতে চান, তবে Vivo ব্র্যান্ডিংয়ের হ্যান্ডসেট কেনার কথা বিবেচনা করে দেখতে পারেন। কেননা আলোচ্য সংস্থাটি তাদের মোবাইলে, “ব্যতিক্রমী ও দুর্দান্ত কোয়ালিটির” ক্যামেরা অফার করে। এক্ষেত্রে ভারতীয় বাজারে বিভিন্ন রেঞ্জের একাধিক Vivo ফোন উপলব্ধ। তবে কোন মডেলটি সর্বাধিক সেরা এবং আপনার জন্য উপযুক্ত তা নিয়ে যদি বিভ্রান্ত থাকেন, তবে আজ আমরা এমন ৫টি বাজেট / মিড-রেঞ্জ মডেলের হদিশ দেব যেগুলির ফ্রন্ট ও রিয়ার ক্যামেরা খুব ভালো। সর্বোপরি প্রতিবেদনে উল্লেখিত প্রত্যেকটি ফোনের দাম ৩০,০০০ টাকার কম থাকায় আপনার পকেটেও চাপ পড়বে না। চলুন তালিকাটি দেখে নেওয়া যাক।

৫টি সেরা Vivo স্মার্টফোনের তালিকা

Vivo Y22 (Starlit Blue, 6GB RAM, 128GB Storage) : ১৬,৪৯৯ টাকা (১৭% বা ৩,৪৯৯ টাকা ডিসকাউন্ট)

ভিভো ওয়াই২২ স্মার্টফোনে দেখা যাবে ৬.৫৫-ইঞ্চির এইচডি প্লাস (৭২০ x ১৬১২ পিক্সেল) IPS LCD ডিসপ্লে, যা ৮৯.৬৭% স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও, ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট এবং ৫৩০ নিট পিক ব্রাইটনেস অফার করবে। এই ডিসপ্লের ডিজাইন ওয়াটার-ড্রপ নচ স্টাইলের, যার কাটআউটের মধ্যে ৮ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা অবস্থিত। আবার ফোনের ব্যাক প্যানেলে ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপ বর্তমান। এগুলি হল – ৫০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর ও ২ মেগাপিক্সেল বোকেহ সেন্সর। উন্নত পারফরম্যান্সের জন্য ভিভো ওয়াই২২ ফোনে মিডিয়াটেক হেলিও জি৮৫ প্রসেসর রয়েছে। এটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ বেসড ফানটাচওএস ১২ কাস্টম স্কিন দ্বারা চালিত। এই ডিভাইস ২ জিবি পর্যন্ত ভার্চুয়াল র‌্যাম সাপোর্ট করে। আর পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য ৫,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে, যা ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে।

বিশেষত্ব –

• ২ জিবি ভার্চুয়াল র‌্যাম,
• ৫০ মেগাপিক্সেলের ডুয়েল রিয়ার ক্যামেরা ইউনিট,
• ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং।
• স্লিম ডিজাইন

Vivo Y100 5G (Pacific Blue, 8GB RAM, 128GB Storage) : ২৪,৯৯৯ টাকা (১৭% বা ৫,০০০ টাকা ডিসকাউন্ট)

ভিভো ওয়াই১০০ ৫জি স্মার্টফোনে ৬.৩৮ ইঞ্চি ফুল এইচডি প্লাস AMOLED ডিসপ্লে প্যানেল রয়েছে। উন্নত পারফরম্যান্স প্রদানের জন্য এটি মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৯০০ প্রসেসর সহ এসেছে। আবার অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে ফানটাচ ওএস ১২ কাস্টম স্কিন পাওয়া যাবে। ফটো ও ভিডিওগ্রাফির জন্য আলোচ্য ডিভাইসে ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর + ২ মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারি সেন্সর + ২ মেগাপিক্সেল লেন্স সমন্বিত ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে। ডিসপ্লের উপরিভাগে ১৬ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা লক্ষ্যণীয়। আর পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য ৪,৫০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি ব্যবহার করা হয়েছে।

বিশেষত্ব –

• ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের FHD+ ডিসপ্লে
• ৬৪ মেগাপিক্সেল ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ
• ৪,৫০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি

Vivo T1x (Gravity Black, 4+128GB) : ১৫,৯৯৯ টাকা (১১% বা ১,৯৯১ টাকা ডিসকাউন্ট)

ভিভো টি১এক্স ৪জি স্মার্টফোনে ৬.৫৮-ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (১,০৮০x২,৪০৮ পিক্সেল) IPS LCD টিয়ারড্রপ নচ ডিসপ্লে দেখা যাবে। এই ডিসপ্লে – ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট এবং ৯০.৬% স্ক্রিন-টু-বডি রেশিও অফার করে। পারফরম্যান্সের জন্য এতে অ্যাড্রেনো ৬১০ জিপিইউ সহ কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। এটি অ্যান্ড্রয়েড ১২ ভিত্তিক ফানটাচ ওএস ১২ (FunTouchOS 12) কাস্টম স্কিনে রান করে। ফটোগ্রাফির জন্য ভিভোর এই ফোনে ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা ইউনিট বর্তমান। এগুলি হল – এফ/১.৮ অ্যাপারচার সহ ৫০ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো লেন্স এবং ২ মেগাপিক্সেল ডেপ্থ সেন্সর। সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের জন্য ডিভাইসে ৮ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট-ফেসিং ক্যামেরা উপস্থিত। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য এতে ৫,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে, যার সাথে ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে। সিকিউরিটির জন্য হ্যান্ডসেটে ফেস আনলক এবং সাইড-ফেসিং ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার উপলব্ধ।

বিশেষত্ব –

• ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেটের IPS LCD ডিসপ্লে সুপার
• নাইট মোড সহ ৫০ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা ইউনিট
• আল্ট্রা ক্লিয়ার ডিসপ্লে

Vivo V21 5G (Sunset Dazzle, 8GB RAM, 256GB Storage) : ২৮,৮৯৫ টাকা (১২% বা ৪,০৯৫ টাকা ডিসকাউন্ট)

ভিভো ভি২১ ৫জি স্মার্টফোনে আছে ৬.৪৪-ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস AMOLED ডিসপ্লে। উন্নত পারফরম্যান্সের জন্য এতে ২.৪ গিগাহার্টজ ক্লক রেটের অক্টা-কোর মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৮০০ইউ প্রসেসর এবং এআরএম মালি জি৫৭ এমসি৩ জিপিইউ ব্যবহার করা হয়েছে। ফোনটি অ্যান্ড্রয়েড ১১ ভিত্তিক ফানটাচ ১১.১ কাস্টম ওএস স্কিনে রান করে। ক্যামেরা ফ্রন্টের কথা বললে ডিভাইসে, ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর + ৮ মেগাপিক্সেল সেকেন্ডারি সেন্সর + ২ মেগাপিক্সেল সেন্সর সমেত ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ উপস্থিত। একই ভাবে সেলফি ও ভিডিও কলিংয়ের সুবিধার্থে পাওয়া যাবে OIS এবং নাইট মোড সমর্থিত ৪৪ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট সেন্সর। এই সেলফি ক্যামেরা কম আলোতে ভালো ছবি তোলার পাশাপাশি, ডুয়েল ভিউ ভিডিও ফিচার সাপোর্ট করে। আর পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য ভিভো ভি-সিরিজের এই ফোনে আছে ৪,০০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি, যা ৩৩ ওয়াট ফ্ল্যাশচার্জিং সাপোর্ট করে।

বিশেষত্ব –

• ম্যাট গ্লাস ডিজাইন
• FHD+ AMOLED ডিসপ্লে
• স্পটলাইট সেলফি ফিচার

Vivo V23 5G (Stardust Black, 8GB RAM 128GB Storage) : ২৯,৪০০ টাকা (১৬% বা ৫,৫৯০ টাকা ডিসকাউন্ট)

ডুয়েল সিমের (ন্যানো) ভিভো ভি২৩ ফোনে রয়েছে ৬.৪৪-ইঞ্চির ফুল এইচডি প্লাস (২,৪০০x১,০৮০ পিক্সেল) AMOLED ডিসপ্লে, যা ৯০ হার্টজ রিফ্রেশ রেট এবং এইচডিআর১০ টেকনোলজি সাপোর্ট করে। ডিভাইসটি মালি জি৬৮ জিপিইউ এবং ৬এনএম প্রসেসিং নোড ভিত্তিক অক্টা-কোর মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৯২০ প্রসেসরের সাথে এসেছে। অপারেটিং সিস্টেম হিসাবে অ্যান্ড্রয়েড ১২ ভিত্তিক ফানটাচ ওএস ১২ কাস্টম স্কিন উপলব্ধ। ফটোগ্রাফির জন্য, ভিভোর এই স্মার্টফোনে LED ফ্ল্যাশ লাইট সমেত ট্রিপল রিয়ার ক্যামেরা ইউনিট বিদ্যমান। এগুলি হল – ৬৪ মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর, ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স এবং ২ মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো সেন্সর। আবার, ডিসপ্লের উপরিভাগে থাকা নচ কাটআউটের মধ্যে দেখা যাবে ডুয়েল-টোন ফ্ল্যাশলাইট সহ ডুয়েল ফ্রন্ট ক্যামেরা সেটআপ। যার প্রাইমারি সেন্সর ৫০ মেগাপিক্সেলের এবং সেকেন্ডারি সেন্সর হিসাবে ৮ মেগাপিক্সেল আল্ট্রা-ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্স বিদ্যমান। পাওয়ার ব্যাকআপের জন্য এতে ৪,২০০ এমএএইচ ক্যাপাসিটির ব্যাটারি আছে, যা ৪৪ ওয়াট ফ্ল্যাশ চার্জিং সাপোর্ট করে। আর সিকিউরিটি ফিচার হিসাবে এই ফোনে অপটিক্যাল আন্ডার-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার মিলবে।

বিশেষত্ব –

• স্টাইলিশ ডিজাইন
• ৪৪ ওয়াট ফ্ল্যাশ চার্জিং সাপোর্ট
• আন্ডার-ডিসপ্লে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার
• ডুয়েল-টোন ফ্ল্যাশলাইট সহ ডুয়েল সেলফি ক্যামেরা



Source link